সেলিব্রিটি বার্তা

ঈদে মলিন পপি

চলচ্চিত্র পুরস্কার বিজয়ী অভিনেত্রী পপির ঈদটা এইবার ভালো  কাটেনি। বাবার অসুস্থতার কারণে  তেমন কোনো কাজও এবারের ঈদে তিনি করতে পারেননি। পপি মানবজমিনকে বলেন, ঈদের আগেই বাবা অসুস্থ হয়ে পড়েন। বর্তমানে তিনি রাজধানীর একটি হাসপাতালে ভর্তি আছেন। বাবার পাশেই চব্বিশ ঘন্টা থাকতে হচ্ছে। তার চিকিৎসা এবং তাকে  দেখভালের কাজ করছি। তাই প্রতি ঈদে ছোট পর্দার নাটকে অভিনয় করলেও এবার কাজের প্রস্তাব পাওযার পরও কোনো নাটকের শুটিং করতে পারিনি। মনটাও ভালো নেই আমার। এর ই সাথে গত কয়েক বছর ধরেই চলচ্চিত্রের বাজার খুব একটা ভালো যাচ্ছে না বলে মনে করেন পপি। তিনি বলেন, সুপার হিট, হিট ছবির সংখ্যা দিন দিন কমছে। একটা সময় ঈদে ৭-৮ টা ছবি রিলিজ হতো এবং সবই সমান তালে ব্যবসা করতো। প্রযোজকরা পুঁজিসহ লাভের মুখ দেখতেন। তবে এখন বড়  বাজেটের ছবির সংখ্যা কম।

উপযুক্ত বাজেট অর্থাৎ কমপক্ষে কোটি টাকা বাজেট ছাড়া একটি চল”িত্র নির্মাণ সম্ভব না। ভালো মানের ছবিতে অনেক অ্যারেঞ্জমেন্টেরও দরকার হয়। আমি চলচ্চিত্রের মানুষ। তাই সবসময় মনের মতো চরিত্র ও গল্পের অপেক্ষায় থাকি। এখনও ভালো চলচ্চিত্রে কাজ করতে আগ্রহী আমি। বর্তমানে পপির হাতে রয়েছে সাদেক সিদ্দিকীর পরিচালনায় ‘সাহসী যোদ্ধা’ ছবিটি। এ ছবির বেশকিছু অংশের কাজ শেষ করেছেন তিনি। ছবিতে আরোও অভিনয় করছেন আমিন খান। এছাড়া  সামনে আরো দুটি নতুন ছবির কাজ শুরু করবেন পপি। তিনি বলেন, শহীদুল হক খানের ‘টার্ন’ এবং ‘যুদ্ধ শিশু’ নামের দুটি ছবির মহরত হয়েছে। দুটি ছবি গল্পও বেশ পছন্দ হয়েছে আমার। এ দুই ছবির কাজ আগামী মাসে শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। ছবির কাহিনী ও চিত্রনাট্য লিখেছেন নির্মাতা নিজে। কাজটি ঠিকভাবে শেষ করতে পারলে আমার বিশ্বাস দর্শকদের কাছে তা গ্রহণযোগ্যতা পাবে। এছাড়াও আরিফ নির্দেশিত ‘কাঠগড়ায় শরৎচন্দ্র’ নামের একটি ছবিতেও কাজ করছেন পপি। পপি  মনে করেন ভালো  বাজেটের  পাশাপাশি  ভালো  মানের আধুনিক  সিনেমা  হল নির্মাণ  হলে ব্যবসায়িক ভাবে আরও  সফলতা দেখেবে বাংলা চলচ্চিত্র।

তারকালয়/১ সেপ্টেম্বর,২০১৮/শায়লা

Previous ArticleNext Article