Uncategorized, সেলিব্রিটি বার্তা

বোলিং দিয়ে ঝড় তুললো সাকিব আল হাসান

আইপিএলের তৃতীয় ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েগিয়েছে। ম্যাচে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদের টক্কর দিতে নিজেদের প্রথম ম্যাচ খেলতে মাঠে নামছে কলকাতা নাইট রাইডার্স। দুই দলেরই নিজেদের প্রথম এই ম্যাচে টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছে হায়দ্রাবাদ অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার।

Tarokaloy_all-rounder_sakib_al_hasan

কিন্তু খুশির খবর এই যে তাদের সাথে আছে বাংলার টাইগার সাকিব আল হাসান।
নিজেদের প্রথম ম্যাচে ঝড় তোলার জন্য সাকিবকে নিয়ে মাঠে নেমেছে কলকাতা নাইট রাইডার্স। এছাড়া সাকিব বাদেও বাকি তিনজন বিদেশি হিসেবে খেলছেন আন্দ্রে রাসেল, প্যাট কামিন্স ও ইয়ন মরগান। ২১ এপ্রিল ২০১৭তে সাকিব সবশেষ কলকাতার জার্সিতে খেলেছে সাকিব। ১৪৫১ দিন আবার কলকাতার হয়ে খেলবেন তিনি।

Tarokaloy_all-rounder_sakib_al_hasan

পক্ষান্তরে আইপিএলে সবশেষ ম্যাচ খেলেছিল ২৩ এপ্রিল ২০১৯, সানরাইজার্সের হয়ে, চেন্নাইয়ের বিপক্ষে। ৭১৯ দিন পরে আইপিএল এ আবারো খেলবেন সাকিব।

মূলত ২১ এপ্রিল ২০১৭ কলকাতার জার্সিতে খেলেছেন সাকিব। ওই ম্যাচে তিনি মাঠে খেলেছিলেন গুজরাট লায়ন্সের হয়ে। ওই ম্যাচে এক বল খেলে ১ রানে অপরাজিত ছিলেন সাকিব। বল হাতে ৩ ওভারে ৩১ রান দিয়ে উইকেট শূন্য ছিলেন তিনি। ওই ম্যাচের ১৪৫১ দিন পর কলকাতার হয়ে খেলতে নেমে বোলিং এসে নিজের প্রথম ওভারেই জ্বলে উঠলেন বিশ্বসেরাা এই অলরাউন্ডার।

Tarokaloy_all-rounder_sakib_al_hasan

কলকাতার জার্সি গায়ে নিয়েই ফের চমক!! মাঠে নেমে বল হাতে নিয়েই প্রথম ওভারেই মাত্র ১ রান খরচে তুলে নিয়েছেন এক উইকেট। সাকিবের ওভারের প্রথম ডেলিভারিতেই বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফিরে যেতে হয় ঋধিমান সাহা। চেন্নাইয়ের এম চিদাম্বরম স্টেডিয়ামে টস জিতে আগে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন হায়দরাবাদের অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার। আগে ব্যাট করার সুযোগ পেয়ে ,খুশিতে খেলার মধ্যে দারুণ আনন্দ পায় কলকাতা। উদ্বোধনী জুটিতে ৫৩ রান তুলেন নিতিশ রানা ও শুভমন গিল।

Tarokaloy_all-rounder_sakib_al_hasan

১ চার ও ছক্কায় ১৩ বলে ১৫ রান করে রশিদ খানের বলে বোল্ট হয়ে গিল সাজঘরে ফিরলে এই জুটি ভাঙে। এরপর তিন নম্বরে খেলতে নামা রাহুল ত্রিপাটির সঙ্গে জুটি বাধেন রানা। দুজন মিলে তুলেন ৯৩ রান। ৫ চার ও ২ ছক্কায় ২৯ বলে ঝড়ো ৫৩ রান করে রাহুল সাজঘরে ফেরত যান। রানার সামনে সুযোগ ছিল সেঞ্চুরি করার। কিন্তু ৯ চার ও ৪ ছক্কায় ৫৬ বলে ৮০ রান করে বিজয় শঙ্করের হাতে ক্যাচ দিয়ে মোহাম্মদ নবীর বলে আউট হন তিনি।

Tarokaloy_all-rounder_sakib_al_hasan

এই দুইজনের বিদায়ের পর আর সেভাবে আগায়নি কলকাতার ইনিংস। ব্যাট হাতে আলো ছড়াতে পারেননি সাকিব আল হাসানও। ৭ নম্বরে ব্যাট করতে নেমে ৫ বলে ৩ রান করে বাদ পরে যান তিনি। শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ২০ ওভারে খেলে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৮৭ রান করে কলকাতা। হায়দরাবাদের হয়ে ৪ ওভারে ২৪ রান নিয়ে দুই উইকেট নেন রশিদ খান।

Previous ArticleNext Article