Uncategorized, সেলিব্রিটি বার্তা

নুসরাত প্রসঙ্গে মুখ খুললেন মধুমিতা

নুসরাত প্রসঙ্গে মুখ খুললেন মধুমিতাএক অভিনেত্রী অন্য অভিনেত্রীর প্রশংসা করছেন ব্যাপারটা খুবই কম দেখা যায় মিডিয়া পাড়ায়। সাধারণত বেশিরভাগ অভিনেত্রী দুর্নাম করার থেকে চুপ থেকে সেফ থাকেন। কিন্তু, মধুমিতা সরকার একেবারে কথার ধরা ঢেকে দিয়ে প্রশংসা করলেন নুসরাত জাহানের। এমনটা হবে কেউ চিন্তা করেনি। কারণ এখন তো চলছে নুসরাতকে নিয়ে হাজারো কথার সমালোচনা। কেননা নুসরাত মা হওয়ার খবর প্রকাশ পাওয়ার থেকে শুরু হয় নানান কথার মেলা ।

Tarokaloy_nusrat_jahan

নুসরাত ও মধুমিতার সঙ্গে একটি মিল রয়েছে। দুজনের মধ্যেই যশ দাশগুপ্ত খুবই কমন। ছোট পর্দায় যশ গুপ্তার সাথে অভিনয় করে মধুমিতা দর্শকদের মন জয় করেছিলেন,তাদের ধারাবারিক নাটকটির নাম ছিল ” বোঝা নে সে বোঝে না” ,নাটকটি বেশ আলোচিত এবং জনপ্রিয় ছিল। সেখান থেকেই এই দুই তারকা ল্যাম লাইটে আসে। এখন মূল কথা হচ্ছে সম্প্রতি যশ এবং নুসরাতের জড়িত নতুন খবর। কেননা যশ নুসরাত এখন সমস্ত দর্শক ও অনুরাগীদের কাছে কৌতূহল এবং চর্চার বিষয়।

Tarokaloy_nusrat_jahan

নুসরাত মা হচ্ছেন। এবং এই নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় কম কটূক্তির শিকার হননি। সবার একটাই প্রশ্ন বাবা কে? কেউ কেউ ভবিষ্যতবাণী করে বলেছেন যশ দাশগুপ্ত। কারণ নিখিল জৈন বলেই দিয়েছেন তিনি বাবা নন নুসরাতের আগত সন্তানের। সেই জন্য দর্শকদের কৌতূহলের শেষ নেই। এই বছরের শুরু থেকেই চর্চায় আছে নিখিল নুসরাত যশ এর ত্রিকোণ প্রেমের সম্পর্ক। বিশেষ করে বিয়েকে সহবাস বলায় আরো বেশি চর্চায় আসেন নুসরাত। এরপরেই খবরের কাগজে ফাঁস হয় নুসরাতের বেবি বাম্পের ছবি। ব্যাস, এখন আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছেন নুসরাত।

Tarokaloy_nusrat_jahan

একদিকে যখন সবাই কাদা ছুঁড়ছেন নুসরাতের পদক্ষেপের দিকে, ঠিক তখনই প্রশংসার দাবিদার হয়ে গেলেন মধুমিতা সরকার। তিনি জানান, ‘নিঃসন্দেহে নুসরাত একজন সাহসী এবং সাহসী পদক্ষেপ নিয়েছেন। প্রেগন্যান্সি চলাকালীন তিনি আরো সুন্দর হয়েছেন, সিঙ্গেল মাদার হয়ে থাকার জন্য তার কোনো অফিসিয়াল স্টেটমেন্ট দরকার নেই। এটা তার জীবন, আমি জাজ করার কেউ নই। তবে, ভারতে বিশেষ করে পশ্চিমবঙ্গে এখনও এতটা উদার হয়নি যে এই বিষয়কে স্বাগত জানাবে, তবে আমি যদি কখনো প্রেগন্যান্ট হই, আনন্দের সঙ্গে পিতার নাম জানাবো। আমি আমার সাহসী পদক্ষেপের জন্য আমার সন্তানকে ক্ষতির মুখে ঠেলে দেব না।’

Previous ArticleNext Article