Uncategorized, সেলিব্রিটি বার্তা

জন্মদিনে মন খারাপ নেহা কক্করের

বর্তমানের একজন জনপ্রিয় গায়িকা নেহা কক্কার। বেশ কয়েবছর যাবত তার চর্চাই চলছে বলি পাড়ায়। তার সঙ্গীতের জগতে তার যাত্রা মোটেও সহজ ছিল না। অনেক উত্থান পতনের মধ্যে দিয়ে তার জীবনের মোড় এ পর্যন্ত এসে পৌঁছেছে।

Tarokaloy_neha_kakkar_and_rohanpreeet

গেলো বছর তিনি ফের ল্যাম লাইটে এসেছিল ,কিন্তু ল্যাম লাইটে আসার কারণ ছিল তার ভালো বাসার মানুষ রোহান প্রীত। কেননা তার সাথে জীবনের পথ পাড়ি দিয়ার জন্য সাথে পাকে বাঁধেন। খুব রমরমা অবস্থা তাদের বিয়ের অনুষ্ঠান সংগঠিত হয়েছিল। অনেকেই তাদের অভিনন্দন জানিয়ে নতুন জীবনের শুভেচ্ছা জানায়। বলিউডের অনেক তারকা তাদের দুইজনের নতুন জীবনে পা রাখায় অনেক প্রশংসা করেন।

Tarokaloy_neha_kakkar_and_rohanpreeet

দেখতে দেখতে তাদের বিয়ের এক বছর সম্পূর্ণ হয়েছে। বিয়ের একটি বছর তাদের জন্য অনেক বেশি স্পেশাল ।সেই সাথে বিয়ের পর রোহান প্রীতের স্ত্রী নেহা কক্কের প্রথম জন্মদিন। রোহান তার স্ত্রী এই দিনটি খুবিই আনন্দের সাথে কাটানোর জন্য বেশ আয়োজন করেছে। অনেক ভাবে সারপ্রাইজ এবং অনেক উপহার দিয়েছে। সেই সাথে সোসিয়াল মিডিয়া তে ভক্ত এবং দর্শকের উইশ এবং শুভেচ্ছা ও ভালোবাসা পেয়ে খুশিতে আত্মহারা নেহা।

Tarokaloy_neha_kakkar_and_rohanpreeet

কিন্তু এত আনন্দের মধ্যেও জন্মের ঘটনা আজও কষ্ট দেয় নেহাকে। কেন? এমনই এক জন্মদিনে বোনের প্রকৃত জীবনকথা সামনে এনেছিলেন নেহার দাদা টনি কক্কর। তিনি জানিয়েছিলেন, কক্কর পরিবারের অবাঞ্ছিত সন্তান নেহা! গর্ভপাত করে নেহাকে মেরে ফেলতে চেয়েছিলেন তাদের মা-বাবা।

Tarokaloy_neha_kakkar_and_rohanpreeet

নেহাকে কেন পৃথিবীর আলো দেখাতে চায়নি কক্কর দম্পতি? সেই কারণও জানান টনি, ‘আমরা তখন ভীষণ গরিব ছিলাম। সংসারের আর্থিক অবস্থা ক্রমশ খারাপ হচ্ছিল। তত দিনে আমি আর সোনু জন্মেছি। মা তাই আর সন্তান চাননি। কিন্তু অজান্তেই নেহাকে গর্ভে ধারণ করে ফেলেন।’

তার ভাষ্য, ‘নেহা গর্ভে এসেছে জানার পরেই বাবা-মা তার গর্ভপাত করাতে চান। কিন্তু তত দিনে গর্ভস্থ সন্তানের বয়স ৮ মাস পেরিয়ে গিয়েছে। অবশেষে এক গ্রীষ্মের বিকেলে পৃথিবীর আলো দেখে নেহা।’

Tarokaloy_neha_kakkar_and_rohanpreeet

প্রচণ্ড অভাবের তাড়নায় ছোটবেলায় বিভিন্ন অনুষ্ঠানে ভজন গেয়ে সংসার চালিয়েছেন সোনু-নেহা। বরাবরই নেহার পথপ্রদর্শক সোনু। তিনিই বোনকে সংগীতের হাতেখড়ি দিয়েছিলেন। ২০১৭ সালে ‘ইন্ডিয়ান আইডল’-এ অংশ নেওয়ার পরেই ভাগ্য বদলে যায় নেহার। গায়িকা এখন ভারতের অন্যতম জনপ্রিয় গায়িকা। বাংলাদেশেও তার অনেক ভক্ত রয়েছে।

Previous ArticleNext Article