Uncategorized, সেলিব্রিটি বার্তা

“আমরা আমাদের দেশটাকে সাথে করে নিয়ে এসেছিলাম” – বাঁধন

কান চলচ্চিত্র উৎসবকে ‘সিনেমার অলিম্পিক’ বললেও ভুল হবে না। দ্বিতীয় বারের মতো ফ্রান্সের কানে অনুষ্ঠিত বার্ষিক আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে সম্মাননা পাচ্ছেন বাংলাদেশী চলচ্চিত্র রেহানা মরিয়ম নূর। এর আগে ২০০২ সালে ৫৫তম আসরে প্রথম বার বাংলাদেশি চলচ্চিত্র ‘মাটির ময়না’ প্রদর্শিত হয়েছিল। এর পর প্রায় ১৯ বছর পর ৭৪তম আসরে এই চলচ্চিত্রটি প্রদর্শিত হচ্ছে।

প্যারিসের কান শহরের সাগর উপকূলে পালে দে ফেস্টিভাল ভবনে গত মঙ্গলবার ৭৪তম উৎসবের পর্দা উঠেছে। এই উৎসব চলবে ১৭ জুলাই পর্যন্ত। উৎসবের মূল পর্বে গুলোর প্রথম ভাগে দেখানো হবে ৪৪টি চলচ্চিত্র। প্রতিযোগিতা বিভাগে ২৪টি। আঁ সার্তে রিগা বিভাগে ২০টি চলচ্চিত্র স্থান পেয়েছে। আর এই ২০টি চলচ্চিত্র মধ্যে একটি হচ্ছে ‘রেহানা মরিয়ম নূর’।

যার দরুন পাল্টে যায় সেখানকার বাংলাদেশ থেকে ফ্রান্সে ভ্রমনকারি চলচ্চিত্র রেহানা মরিয়ম নূরের পুরো টীম এর চিন্তা ধারণা। ৭৪তম আসরের আঁ সার্তে রিগা বিভাগে প্রথম প্রচারে এক হাজার ৬৮ জন দর্শক নীরবতায় মাঝে সিনেমাটি উপভোগ করেন।
দর্শক প্রতিক্রিয়ায় দেখে রেহানা মরিয়ম নূর চরিত্র অভিনীত অভিনেত্রী আজমেরী হক বাঁধন এ সময় আবেগ আপ্লুত হয়ে ওঠেন। নিজেকে আটকে রাখতে পারেননি বাঁধন। এতো দর্শকের কলতালিতে কান্নায় ভেংগে পড়েন বাঁধন।

ফ্রান্সে বাংলার নারীদের ঐতিহ্যবাহি পোশাক জামদানি শাড়ি পরে ঝলমল আলো ছড়িয়েছেন অভিনেত্রী আজমেরী হক বাঁধন। বিদেশের মাটিতে তার এই লুক যেনো বাংলাদেশি দর্শকের মনে আলাদা জায়গা করে তুলেছে। তিনি এখন সর্ব ক্ষেত্রে প্রশংসিত। গণমাধ্যমের কাছে ইন্টারভিউ দিয়ে দেয়ার সময় ব্যক্ত করতে গিয়ে বাঁধন জর্জরিত কণ্ঠে বলেন, ‘এখানে আসার মতো এত বড় স্বপ্ন দেখার সাহসও আমার ছিল না। যে সম্মান পেলাম তার পুরো কৃতিত্ব টিমের ও পরিচালকের। আমি শুধু তাকে বিশ্বাস করেছি আর তার কথামতো পরিশ্রমটা দিয়েছি। আজ যে রেসপন্স পেয়েছি, আমি জানি না এরপর আমার আর কী পাওয়ার থাকতে পারে।’

দর্শক যখন দাঁড়িয়ে সম্মান জানাচ্ছিল, সে মুহূর্তের অনুভূতি সম্পর্কে বাঁধন বলেন, ‘এত সম্মান, আমি জানি না…আমি সত্যিই সম্মানিত, অনেক আনন্দিত। এই সম্মানটা শুধু তো আমাদের নয়, আমাদের দেশের সম্মান। সবাই যখন দাঁড়িয়ে অভিনন্দন জানাচ্ছিল, তখন…আসলে তো আমরা আমাদের দেশটাকে সাথে করে নিয়ে এসেছিলাম। এটা দেশের জন্য অনেক বড় প্রাপ্তি।’

ফ্রান্স, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ভারতসহ বিশ্বের বিভিন্ন গণমাধ্যমে এখন শুধু একটি আলোচনা ‘রেহানা মরিয়ম নূর’। ছবিটি নিয়ে ইতিবাচক পর্যালোচনা প্রকাশিত হয়েছে। কানে আসা বিভিন্ন দেশের চলচ্চিত্র প্রেমীরা কাছে তাদের ভালোলাগার কথা জানিয়েছেন। রেহানা চরিত্রে আজমেরী হক বাঁধনের অভিনয় এবং পরিচালক সাদের এত বড় কাজের গুনগান গেয়েছেন তারা।

Previous ArticleNext Article