Uncategorized, লাইফস্টাইল

অফিসের প্রথম দিনের কিছু বিবেচ্য বিষয়

অফিসের প্রথম দিন থেকেই একটা টেন্ডেন্সি সবার মাথায় কাজ করে সেটা হচ্ছে বসের মন জয় করতে হবে! কিন্তু যখন একটি মানুষ নতুন জয়নিং করে তখন সহজেই নতুন একটি প্রতিষ্ঠানে কর্মজীবন শুরু করে সব কিছু একসাথে মুহূর্তে মধ্যে অর্জন হয়না। আর কর্মজীবনের শুরুর এই অধ্যায়টি প্রত্যেকের জীবনে একটি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

এটি যেমন মানুষের জীবনে নতুন একটি অধ্যায়ের সূচনা করে তেমনিভাবে তার সামনে নতুন একটি চ্যালেঞ্জেরও সৃষ্টি করে। অফিসে বসের কাছে প্রথমদিন থেকেই নিজের ইতিবাচক মনোভাব তৈরি করা ক্যারিয়ারে দীর্ঘমেয়াদী উন্নয়নে বিশেষ ভূমিকা পালন করতে সহায়তা করে। তাহলে আসুন দেখি বসের মন জয় করার জন্য কোন বিষয়গুলো আপনাকে লক্ষ্য রাখতে হবে।

কাজে দ্রুত সাথে করার চেষ্ঠা রাখুন: অফিসের দলীয় কাজ খুব দ্রুততার সাথে করার চেষ্টা করুন। যারা এই কাজটি সঠিক ভাবে করতে পারে তারা প্রথম দিন থেকেই বসের ইতিবাচক মনোভাব লাভ করতে সক্ষম হয়। এতে করে দুজনের সম্পর্কে মধ্যে দীর্ঘ বিশ্বাস স্থাপন করতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

নতুন নতুন আইডিয়া ইনভেন্ট করা:যতটা সম্ভব খুব দ্রুতই বসের কাছে প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নের জন্য সাহসী একটি আইডিয়ার প্রস্তাব করুন। এটি হবে আপনার আত্নবিশ্বাস ও বিচক্ষণতা প্রদর্শনের একটি বড় মাধ্যম

কাজে প্রতি পটেন্সিয়াল থাকা এবং এক্সট্রা সময় ব্যয় করা: যেহুতু ফার্স্ট ডে অ্যাট অফিস সে ক্ষেত্রে অফিসের কাজে অতিরিক্ত সময় ও প্রয়াস প্রদর্শন করুন। বস এ ধরনের কর্মীদের বেশি পছন্দ করেন। নিজের দায়িত্ব–কর্তব্যের পাশাপাশি অন্য সবার দায়িত্ব–কর্তব্যের ব্যাপারে সুস্পষ্ট ধারণা লাভ করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এতে সম্পর্কে নিশ্চিত হবেন।

সুসম্পর্ক বজায় রাখুন: সবাইকে দেখাতে হবে যে, আপনি অনেক বেশ মিশুক এবং আপনি দলের একজন সদস্য হতে সক্ষম। সবার সাথে নিজের পরিচিতি বাড়িয়ে নিন। চেষ্ঠা করবেন সবার নাম আর তার সাথে প্রত্যেকের ব্যাপারে ছোট খাটো তথ্য অনুসন্ধান করে রাখা । এটি আপনাকে সবার সাথে সুসম্পর্ক নিশ্চিত করতে সহায়তা করবে। ক্যারিয়ারে দীর্ঘমেয়াদী জায়গা দখল জন্য দলে নিজের সুদৃঢ় অবস্থান বজায় রাখা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

হাসি মুখে কাজ করুন: অফিসের সবার সাথে হাসি মুখে কাজ করুন।কেননা গম্ভীর মুখে কাজ করলে পরিবেশ টাও গম্ভীর হয়ে উঠে কাকে উদাসীনতা তৈরি হয়।আর অফিসের বস সবসময় এটি পর্যবেক্ষণ করেন যে, আপনি সবার সাথে কীভাবে কথা বলেন ও যোগাযোগ রাখেন। তাই চেষ্ঠা করবেন সব সময় নিজেকে প্রানবন্ত রাখার।

গবেষণা করুন: কাজ করার মাধ্যমে কিন্তু অনেক কিছু শেখা যায়, তবে অনেক বিষয় আছে যেগুলো পড়াশোনায় ও বিচার বিশ্লেষণ এবং গবেষণার মাধ্যমে অর্জন করতে হয়। বিভিন্ন ধরনের প্রফেশনাল বই ও গবেষণাপত্র অধ্যয়ন এ ক্ষেত্রে খুবই কার্যকরী হতে পারে। এটি আপনার সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়াকে আরও সচল করবে। মানুষের মননশক্তি ও চিন্তাশক্তি বৃদ্ধিতে গবেষণা খুবই জরুরি।

Previous ArticleNext Article