সাজগোজ

রূপচর্চায় মধুর গুনাগুন ব্যবহার!

আমরা দৈনন্দিন জীবনে ত্বক ও চুলের যত্নে কেমিক্যাল প্রডাক্টস এর উপর এতটাই নির্ভর হয়ে পড়েছি যে সহজেই সব কিছু হাসিল করতে চাই কিন্তু ভুলে যাই এই কেমিক্যাল প্রডাক্টস ত্বকের কতটুকু ক্ষতি করতে চলেছে। কেননা এই সব পণ্যে অতি মাত্রায় রাসায়নিক উপাদান রয়েছে তা কি আমরা জানি ? যা স্বল্প সময়ের জন্য হয়তো চুল, ত্বকের উপরে ভালো প্রভাব ফেলে কিন্তু অন্য দিনে যে ধীরে ধীরে ত্বক ও চুলেকে দীর্ঘস্থায়ীভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করছে সেটা কি টের পাচ্ছেন! কসমেটিক্স প্রডাক্টস ব্যবহার করবেন কিন্তু খুবই লিমিটেড ভাবে।  
প্রাকৃতিক উপাদন দিয়ে প্রতিদিন একটু একটু করে রূপচর্চা করতে পারেন যেমন ধরুন মধু । প্রাকৃতিক উপাদান হয়তো তাৎক্ষণিক আপনার ত্বক বা চুলে কোন প্রভাব ফেলতে নাও পারে। তবে এটি আপনার ত্বককে ভিতর থেকে কাজ করবে যা সময়সাপক্ষে হলেও অনেক উপকারী।

 

 

সৌন্দর্যে মধুর উপকারিতা :

• মধু একটি প্রাকৃতিক অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যা সূর্যের ক্ষতিকারি রশ্মি থেকে ত্বককে রক্ষা করে।

• মধু মধ্যে একটি আদর্শ ময়শ্চারাইজিং এবং ক্লিনিং করার গুন রয়েছে।

• মধু খুঁত বা দাগ দূর করতে সাহায্য করে।

• ত্বকের আদ্রতা ধরে রাখতে, বলিরেখা কমিয়ে ত্বক টানটান করতে ও ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়ার হাত থেকে ত্বক সুরক্ষিত রাখতে মধুর জুড়ি নেই।

• ত্বককে উজ্জ্বল করতে সাহায্য করে মধু।

 

 

রোদের পোড়া ভাব কমাতে

মধু রোদে পোড়া দাগ সারিয়ে তুলে দ্রুত। এটি ত্বকের বিভিন্ন সমস্যা যেমন জ্বালাপোড়া কমিয়ে তুলে।
১চা চামচ মধু নিন ও অ্যালোভেরা জেল নিয়ে ভালো করে মিশিয়ে ত্বকের আক্রান্ত স্থানে লাগান। ১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন পানি দিয়ে।

 

 

ত্বকের কালো দাগ দূর করতে

মধু ত্বকের কালো দাগ উঠিয়ে ত্বক করে উজ্জ্বল। মধুর মধ্যে আছে অ্যান্টিইনফ্ল্যামটরি ও অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল উপাদান যা ত্বকের কালো দাগ কমাতে এবং টিস্যু পুনর্গঠন করতে সাহায্য করে।
১ চামচ মধুর সাথে ১ চামচ অলিভ অয়েল ও লেবুর রস মিশিয়ে নিন। তারপর ত্বকের ক্ষত যায়গা বা দাগে আঙুল দিয়ে সার্কুলার মোশনে ম্যাসেজ করুন। তারপর একটি ছোট তোয়ালে হালকা গরম পানিতে ভিজিয়ে মুখের উপরে দিন। এভাবে হালকা স্টিম নিন। ঠাণ্ডা হয়ে যাওয়ার পর মুখ ধুয়ে ফেলুন। এইভাবে প্রতিদিন কাজটি করুন ফলাফল খুব দ্রুত পাবেন।

 

 

ব্রণ দূর করতে

কিশোরী থেকে শুরু করে মোটামুটি সব বয়সের মানুষের জন্য ব্রণ একটি চিন্তার কারণ। মধুর অ্যান্টিফাঙ্গাল এবং অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল উপাদান ত্বকের লালচেভাব ও জ্বালাপোড়া কমিয়ে ত্বক ব্রণের হাত থেকে রক্ষা করবে। আক্রান্ত স্থানে মধু লাগিয়ে ১০-১৫ মিনিট পর হালকা গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

 

 

চুলের সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে

৩ চা চামচ মধু, ২ টেবিল চামচ টক দই ও ২ টেবিল চামচ অলিভ অয়েল নিয়ে একসাথে মিশ্রণ তৈরি করুন। তারপর আপনার চুলে মিশ্রণটি ভালো করে লাগিয়ে নিন। ১ ঘণ্টা রেখে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ভালো ফলাফলের জন্য প্রতি সপ্তাহে একবার এই মিশ্রণটি ব্যবহার করুন। এটি আপনার চুলে কন্ডিশনারের কাজ করবে। চুলকে করবে উজ্জ্বল ও প্রাণবন্ত।

 

 

তারকালয়/০৪/১০/১৮/রুপা

Previous ArticleNext Article