Uncategorized, সেলিব্রিটি বার্তা

আবারও ক্ষিপ্ত হলেন সালমান শাহের জননী!!

বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের সিনেমা’র মহানায়ক সালমান শাহ। খুব অল্প সময়ে লাম লাইটে চলে আসেন তিনি কিন্তু তার এই সময়টা ছিল ক্ষণিকের
১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর তিনি চলে যান না ফেরার দেশে। তবে কোটি ভক্তের অন্তরে তিনি আজও অমর হয়ে আছেন ।নব্বই দশকের হয়েও তিনি ছিলেন অত্যন্ত স্মার্ট এবং রুচিশীল একজন অভিনেতা।তার পোশাক আশাক তখনকার যুগ থেকে শুরু করে বর্তমান যুগের তরুণ তরুণীদের আকর্ষণ করে। সেই সুবাদে ভক্তদের জন্য দারুণ সুযোগ নিয়ে এসেছিল প্রিয় নায়কের ব্যবহার করা টি-শার্ট ও মা’থার ব্যান্ড নিলামে ওঠার ঘোষণার মধ্য দিয়ে।

tarokaloy_salman_shah

 

সেই সুযোগ সম্ভবত শেষ পর্যন্ত আর পূরণ হচ্ছে না। কারণ, সালমানের পরিবার আ’পত্তি জানিয়েছে তার ব্যবহৃত জিনিস নিলামের ব্যাপারে। এমনকি সালমান শাহের মা নীলা চৌধুরী ও মামা কুমকুম, সালমান ভক্তের কাছে ওই টি-শার্ট ও মাথার ব্যান্ড ফেরত জন্য উকিল নোটিশ পাঠিয়েছেন। গতকাল সোমবার ২০ জুলাই দিবাগত রাত ১২টা ৪২ মিনিটে মামুনুর রেজা মামুন নামে এক সালমান ভক্তের উদ্ধৃতি দিয়ে জাগো নিউজ ‘নিলামে উঠছে সালমান শাহের টি-শার্ট ও মাথার ব্যান্ড’ শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশ করে। সেখানে মামুন জানান, প্রায় ২০ বছর ধরে তার সংগ্রহে রয়েছে ‘অন্তরে অন্তরে’ সিনেমায় সালমান শাহর ব্যবহার করা একটি টি-শার্ট ও মা’থার একটি ব্যান্ড।

tarokaloy_salman_shah

নায়কের মা নীলা চৌধুরী প্রায় ২০ বছর আগে এ দুটি জিনিস স্মৃ’তি হিসেবে মামুনকে উপহার দিয়েছিলেন বলেও দাবি করেন তিনি। এবার করোনা পরিস্থিতিতে দেশের অসহায় মানুষদের কল্যাণে তিনি সেই সব জিনিস নিলামে তুলতে চান। প্রিয় নায়কের টি-শার্ট ও ব্যান্ড বিক্রি করে পাওয়া অর্থ দিয়ে অসহায়দের সাহায্য করাই তার মূল উদ্দেশ্য। কিন্তু ঘোষণার ২৪ ঘণ্টা না পেরোতেই এই দুটি জিনিস নিলামে তোলার ব্যাপারে আনুষ্ঠানিকভাবে আপত্তি জানিয়েছেন সালমানের মা নীলা চৌধুরী। জাগো নিউজের ওই সংবাদের প্রেক্ষিতে নীলা চৌধুরী ও তার পরিবারের আইনজীবী হিসেবে অ্যাডভোকেট ফারুক আহমেদ স্বাক্ষরিত একটি উকিল নোটিশ আজ মঙ্গলবার ২১ জুলাই মামুনুর রেজা মামুনের উদ্দেশ্যে পাঠানো হয়েছে।

tarokaloy_salman_shah

যার প্রেক্ষিতে নোটিশে বলা হয়েছে, ‘সালমান শাহ ভক্ত মামুনুর রেজা মামুনের উদ্দেশ্যে আমি নিম্ন লিখিত স্বাক্ষরকারী সালমান শাহ জননী নীলা চৌধুরী ও তার পরিবারের আইনজীবী হিসেবে অবগত করছি যে, অনলাইন পত্রিকা জাগো নিউজে ২১/০৭/২০১০ইং তারিখ আপনার উদ্ধৃতি দিয়ে ১৯৯৪ সালে মুক্তি পাওয়া শিবলী সাদিক পরিচালিত ‘অন্তরে অন্তরে’ সিনেমায় প্রয়াত চিত্রনায়ক সালমান শাহ’র ব্যবহৃত ১টি টি-শার্ট ও ১টি মাথার ব্যান্ড নিলামে উঠানাের বিষয়ে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। যাহা তার পরিবার ও অন্য ভক্তবৃন্দের দৃষ্টি গােচর হয়েছে। সালমান শাহ জননী প্রবাস থেকে এবং কুমকুম মামা সিলেট থেকে আমাকে অবগত করেন যে, এরূপ টি-শার্ট ও মা’থার ব্যান্ড আপনাকে কখনও স্মৃ’তি হিসেবে দেয়নি।

tarokaloy_salman_shah_and_his_mother

এ উদ্দেশে আরো বলেন যে, আপনি সালমান শাহর মৃত্যুর পর অন্য ভক্তবৃন্দের সহিত বাসায় আসা যাওয়া করে থাকতে পারেন। সেই সময়ে সালমান শাহর ব্যবহৃত কাপড় চোপড় এলােমেলাে অবস্থায় ছিল। সালমান শাহর অকাল মৃ’ত্যুতে পরিবারের সদস্যদের মানসিক অবস্থা খারাপ ছিল। এই সময়ে অনেক ভক্ত গুণগ্রাহী বাসায় আসা যাওয়া করেছিল। পরে সালমান শাহর ব্যবহৃত বিভিন্ন জিনিসপত্র খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। আপনার দাবিকৃত সালমান শাহর জননী ও তার পিতা স্মৃতিচিহ্ন হিসেবে কিছু উপঢৌকন আপনাকে প্রদান করেন এ মর্মে দাবি সঠিক নহে।’

tarokaloy_salman_shah

টি-শার্ট ও ব্যান্ড নিলামে না তোলার অনুরোধ জানিয়ে নোটিশে আরও উল্লেখ করা হয়েছে, ‘আপনাকে অবগত করা যাচ্ছে যে, চির অমর নায়ক সালমান শাহ’র ব্যবহৃত টি-শার্ট ও মা’থার ব্যান্ডসহ অ’পরাপর সামগ্রী নিলাম বিক্রি করা থেকে বিরত থাকার জন্য অনুরোধ করা হইল। আপনাকে আরো বিশেষভাবে অনুরােধ করা যাচ্ছে যে, ওই টি-শার্ট ও ব্যান্ড ছাড়াও আপনার কাছে রক্ষিত অপরাপর জিনিসপত্র সালমান শাহর জননী বা তার পরিবারের নিকট ফেরত প্রদানের জন্য আহ্বান করা হইল। অন্যথায় আপনার বি’রুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হইবে।’

এ নোটিশ স’ম্পর্কে জানতে সালমান ভক্ত মামুনের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, ‘এ বিষয়ে কিছুই জানি না আমি। কোনো নোটিশও আসেনি। তাই এ নিয়ে আমি কিছু বলতে চাই না। তবে যেহেতু বিষয়টি আলোচনায় এসেছে নিলামে তোলার আগে চেষ্টা করবো সালমান শাহর মা নীলা চৌধুরীর সঙ্গে কথা বলতে। আশা করছি ভুল বোঝাবুঝির অবসান ঘটবে।’

tarokaloy

Previous ArticleNext Article