সাজগোজ

ব্রনের দাগ নিয়ে চিন্তিত? কিভাবে প্রাকৃতিক উপায়ে দূর করবেন ভাবছেন? চলুন জেনে নেই!

ব্রনের সমস্যা যেন চিরাচরিত! একবার হলে ভালো হওয়ার নাম ই নিতে চায় না। আর ব্রন সেরে গেলেও ব্রনের দাগ ফেলে রেখে যায়। আসলে মুলত এই সমস্যা বেশি হয় তৈলাক্ত ত্বকে। তাই আপনার ত্বক তৈলাক্ত হলে প্রতিদিন নিয়মিতভাবে ত্বককে ক্লিনজার দিয়ে ক্লিন রাখার চেষ্টা করবেন। দিনে তিনবার মুখ অয়েল ফ্রি ফেস ওয়াশ দিয়ে ধুবেন। যাই এটা তো ছিল তৈলাক্ত ত্বকে ব্রন থেকে বাঁচার উপায়। আসুন জেনে নেই কিভাবে ব্রনের দাগ দূর করবেন ন্যাচারালি!

 

অ্যালোভেরা রস  
 
অ্যালোভেরা প্রকৃতির এক অনন্য উপাদান যা ত্বকের যত্নে খুবই উপকারী । এই একটা উপাদান ত্বকের নানা রকম সমস্যা থেকে মু্ক্তি দেয়। যে কোনো সুপার শপে বা বাজারে অ্যালোভেরা পাওয়া যায়। সেখান থেকে কাঁচা অ্যালোভেরা কিনে এর থেকে রস বের করে নিন। প্রথমেই একটি আস্ত অ্যালোভেরা নিয়ে সেটিকে ছুঁরির সাহায্যে মাঝ খানে থেকে ফালি করুন। এরপর কাটলেই দেখবেন ভেতরে স্বচছ্ব জ়েলীর মত উপাদান, এটিকে চামচ বা ছুরির সাহায্যে চেঁছে রস টি বের করুন। এবার এই অ্যালোভেরার রস টি মুখের এপ্লাই করুন,দিনে যতবার ইচ্ছা ব্যবহার করতে পারেন। এটি আপনাকে দেবে ব্রণের গর্তের দাগ থেকে মুক্তি। 

 

ভিটামিন ই তেল  
 
ব্রনের দাগ সারানোর জন্য সবচেয়ে সহজ ও কার্যকর সমাধান হচ্ছে ভিটামিন ই তেল। প্রতিদিন অল্প পরিমাণে ভিটামিন ই তেলের ব্যবহারে আপনার ত্বক হয়ে উঠবে দাগহীন,উজ্জ্বল। এটি ব্রণের কালো দাগ সারাতেও সাহায্য করে। ভিটামিন ই তেল বাজারে কিনতে পাওয়া যায়। আর না পেলে ভিটামিন ই ক্যাপসুল ব্যবহার করুন। প্রথমে সমস্ত মুখ অয়েল ফ্রি ফেস ওয়াস দিয়ে পরিষ্কার করে নিন। এরপর ক্যাপসুল এর মাথা কাঁচি দিয়ে সামান্য কেটে তেল বের করে নিন। তারপর পরিষ্কার হাত দিয়ে মুখে লাগিয়ে নিন। খুব বেশি তৈলাক্ত ত্বক হলে লাগানোর আধ ঘণ্টা পর টিস্যু পেপার দিয়ে অতিরিক্ত তেল চেপে চেপে তুলে নিন। নয়ত সারা রাত লাগিয়ে রাখতে পারেন। সপ্তাহে ২-৩ বার এভাবে করুন।

 

লেবু  

লেবুতে আছে সাইট্রিক এসিড। সাইট্রিক এসিড স্কারস সারাতে অনেক ভালো কাজ করে। কয়েক গ্লাস লেবুর শরবত পান করলে তার সাইট্রিক উপাদান আপনার দেহের ভেতর থেকে মরা কোষ সারিয়ে ত্বকের রঙ হালকা করতে সাহায্য করে। একটি মাঝারি আকারের লেবুর রস সমপরিমাণ পানির সাথে মিশিয়ে মুখে ঘষুন এতে দাগ হালকা হবে। সময়ের সাথে সাথে আপনি পাবেন দাগ মুক্ত ত্বক।

 

টমেটো  
 
টমেটোতে আছে ভিটামিন এ ও প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। যা সেবামের অতিরিক্ত ক্রীয়া বন্ধ করতে সক্রিয় ভূ্মিকা রাখে এবং ব্রণ ও ব্রণের দাগ দুটোই সারিয়ে তোলে। ত্বককে করে উজ্জ্বল । মাঝারি আকারের পাকা টমেটো নিন। একে সমান ২ ভাগে ভাগ করুন। এবার আপনার ত্বকে সার্কুলার মোশনে ম্যাসাজ করুন। এতে যেমন ব্রনের দাগ হালকা হবে, এমনকি রোদে পোড়া ভাব-ও কমবে

 

 

অলিভ ওয়েল  
 
অলিভ ওয়েল একটি জাদুকরী উপাদান। এটি শুধু খাদ্যদ্রব্যই সুস্বাদু করে না, এটি ত্বক পরিচর্যায় ও কার্যকরী ভূমিকা রাখে।এক্সট্রা ভারজিন অলিভ ওয়েল দ্রুত ব্রনের দাগ দূর করতে সাহায্য করে। অলিভ ওয়েলের ময়েশ্চারাইজিং গুণাগুণের কারণে এটি দ্রুত ত্বকের সাথে মিশে যায় এবং ব্রনের দাগ দূর করতে সাহায্য করে। অল্প পরিমাণে অলিভ ওয়েল নিয়ে সম্পূর্ণ মুখে মালিশ করুন এবং ভালো ফল পেতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে ব্যবহার করুন।

 

 বরফ কিউব  
 
বরফ কিউব ব্যবহারে ব্রণের গর্ত হালকা হওয়াটা অনেকটা পরীক্ষীত। অনেকেই আছে ঘরে বসে স্কার সারানোর জন্য বরফ কিউব ব্যবহার করে থাকেন। পাতলা কাপড় বা তুলোতে একটা বরফের টু্করো নিয়ে গর্তের জায়গায় ১৫-২০ মিনিট ঘষে লাগান। এতে ত্বকে আরামদায়ক অনুভুতির পাশাপাশি সারিয়ে দেবে ব্রনের গর্তের দাগ।

 

টক দই ও বেসন  
 
ব্রণের দাগ দূর করতে। টক দই ও বেসন এর ফেস প্যাক লাগাতে পারেন। বেসনটকদই ও লেবুর রস একসঙ্গে মিশিয়ে ভালো করে পেস্ট বানিয়ে নিন। এরপর পুরো মুখে পেস্টটি এপ্লাই করুন। ১৫-২০ মিনিট পর শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন। এই ফেসপ্যাকটি সপ্তাহে অন্তত দুই থেকে তিন বার ব্যবহার করুন। শুধু ব্রন ও ব্রনের দাগ দূর করবে না, এমনকি ত্বককেও করবে উজ্জ্বল ও প্রাণবন্ত।

 

তারকালয়/১৯/০৯/১৮/রুপা

Previous ArticleNext Article