সাজগোজ

চুল পড়া রোধে ঘরেই তৈরি করে ফেলুন প্রাকৃতিক শ্যাম্পু ! 

চুল পড়া যেন কোন বয়স মানে না। ছোট বড় যে কোনো বয়সে চুল পড়া কমন সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। চুল পড়া কীভাবে বন্ধ করা যায় আর নতুন চুল কীভাবে গজানো যায় তা নিয়ে আমাদের প্রশ্নের শেষ নেই। অনেকেই হয়তো ভাবছেন কোন শ্যাম্পু টা ব্যবহার করলে চুল পড়া বন্ধ হবে! চুল পড়া রোধে শ্যাম্পু কখনো কাজে আসে না বরং প্রতিদিন শ্যাম্পু ব্যবহারে স্কাল্প ড্রাই হয়ে যায়। শ্যাম্পুতে থাকা সালফেট চুলের জন্য মোটেই ভালো নয়। এখন যদি বলি একদম প্রাকৃতিক উপায়ে খুবই কম খরচে আপনি নিজেই সম্পূর্ণ নিরাপদ শ্যাম্পু তৈরি করতে পারবেন। যা চুল পড়া বন্ধ করার পাশাপাশি চুলে এক্সট্রা কন্ডিশনারের কাজ করবে। 
আমাদের নানী-দাদীরা তাদের আমলে শ্যাম্পু ছিল না তখন তারা রিঠা আর শিকাকাই দিয়ে চুল পরিষ্কার করতেন। চলুন আজ সেই রেসিপি জেনে নেয়া যাক! 
 
 
 

শিকাকাই : 
 
শিকাকাই এর নামের আক্ষরিক অর্থ Fruit for hair শিকাকাই আমাদের প্রাচীন কাল থেকে এটি চুলের যত্নে প্রচলিত। শিকাকাই ফল আর বাকল থেকে শ্যাম্পু তৈরি করা হয়। এটা চুল পরিষ্কারে বাজারের সালফেট শ্যাম্পুর চেয়েও অনেক বেশি কার্যকর। আর প্রাকৃতিক কন্ডিশনারের কাজও করে। 
 
 
 

রিঠা : 
 
চুলের খুশকি, মাথার একজিমা আর উকুন দূর করতেও ব্যবহার করা হয়। পরিষ্কারের কাজে এর জুরি নেই। আজো গ্রামে এটা দিয়ে কাথা, লেপ পর্যন্ত ধুয়ে ফেলা হয়। এতে প্রচুর ফেনা হয়।  
 
 
 

যেভাবে বানাবেন 
 
১৫-২০টা রিঠা আর ৫-৭ শিকাকাই নিন। চুল যদি বেশি রুক্ষ হলে সেক্ষেত্রে শিকাকাই একটু বেশি দিবেন আর রিঠা কম দিয়ে তৈরি করবেন । কারণ শিকাকাই চুল মসৃণ আর নরম করে। বাজারে রিঠা আর শিকাকাই পাউডারও পাওয়া যায়। সেক্ষেত্রে ৪ টেবিল চামচ চামচ রিঠার সঙ্গে ২ টেবিল চামচ শিকাকাই মেশাবেন চুলের সাইজ অনুযায়ী বানাবেন।  
 
প্রথমে রিঠার বীজ বের করে নিয়ে শিকাকাইসহ কয়েক ঘণ্টা পানিতে ভিজিয়ে রাখুন নরম হবে। এরপর একটা কড়াইয়ে এগুলো পানিতে ডুবিয়ে ১৫ থেকে ২০ মিনিট চুলায় অল্প আঁচে সিদ্ধ করুন। ফেনা হলে চুলা থেকে নামিয়ে নিন। এবার ঠাণ্ডা করে শ্যাম্পু হিসেবে ব্যবহার করুন। এটা এক সপ্তাহ ফ্রিজে রেখেও ব্যবহার করতে পারবেন। 
 
 

 

যেভাবে ব্যবহার করবেন 
 
প্রথমে পানি দিয়ে চুল ধুয়ে নিন। এবার তৈরি করা শ্যাম্পু দিয়ে নরমাল শ্যাম্পুর মতো করে চুল ধুয়ে নিন। প্রথমবার বেশি ফেনা হবে না। তবে ফেনা বেশি হওয়া জন্য বেশি দিতে যাবেন না। এতে অতিরিক্ত রিঠা চুল শুষ্ক করে ফেলতে পারে। তিন-চার মিনিট ভালোভাবে মাথা ম্যাসাজ করে ধুয়ে ফেলুন। যদি চুলে তেল থাকে তাহলে তেল না যাওয়া পর্যন্ত শ্যাম্পু করুন।  
 
 
 
উপকারিতা : 

  • চুল পড়া বন্ধ করে। 
  • সম্পূর্ণ কেমিক্যাল ফ্রি। 
  • কন্ডিশনারের খরচ পুরটাই বেঁচে যাবে। 
  • চুলের ফ্রিজি ভাব কমায় চুলের গোঁড়া শক্ত করে। 
  • খুশকি আর উকুন দুর করে। 
  • চুল আস্তে আস্তে স্ত্রেইট করে ফেলে। 
  • শিকাকাই চুল সিল্কি, মসৃণ করে।  

 
 
তারকালয়/০৬/১১/১৮/রুপা 

Previous ArticleNext Article