সাজগোজ

কপালের বলি রেখা দূর করার প্রাকৃতিক উপায়!

অনেক ক্ষেত্রে দেখা বয়সের আগেই চেহারায় নানান বয়সের ছাপ, বলি রেখা, কপালে ভাঁজ পড়ে যাওয়া, চোখের আসে পাশে ভাজ পরে যাওয়া ইত্যাদি দেখা দেয়। যা বরাবরই চোখে পড়ার মতো ও দেখতেও অনেক বয়সী লাগে। এগুলো সাধারণত হয় অস্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস গড়ে তুললে, অতিরিক্ত চিন্তা ও স্ট্রেস নিলে বা ত্বকের ধরন না বুঝে নানান কেমিক্যাল প্রডাক্টস ব্যবহার করে। যাই হোক এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে ঘরোয়া কিছু উপায় আছে যা ব্যবহারে আপনার ত্বকের বলি রেখা দূর করতে সাহায্য করবে। যা ব্যবহারে কোন প্রকার ক্ষতিকর প্রভাব পরবে না উপকার ছাড়া। আসুন জেনে নেই কিভাবে? 
 
 
 
 
নারিকেল তেল 
 
 
নারিকেল তেল আপনার ত্বকের বলি রেখা দূর করতে সাহায্য করবে। সেজন্য সামান্য খাঁটি নারিকেল তেল হাতে নিয়ে কপালে ও মুখে মাসাজ করুন ৫ মিনিট যতক্ষণ না তেল মুখে পুরোপুরি শুষে নেয়। এটা প্রতিরাতে ঘুমানোর আগে ব্যবহার করলে অনেক ভালো কাজে দিবে। নারিকেল তেল ত্বককে ময়শ্চারাইজ করে ও ত্বককে রাখে হেলদি। এতে আছে অ্যান্টি-অক্সিডেন্টস যা ফ্রি রেডিকেলস থেকে ত্বককে রক্ষা করে। ফি রেডিকেলস এর ফলে ত্বক নিস্তেজ ও মলিন হয়ে পরে। নারিকেল এ সমস্যা থেকে দ্রুত মুক্তি দেয় ও কপালের বলি রেখা দূর করে। 
 
 
 
 
অ্যালোভেরা জেল ও ডিমের সাদা অংশ 
 
 
২ টেবিল চামচ অ্যালোভেরা জেল ও ১টি ডিমের সাদা অংশ একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। এরপর কপালে ও মুখে লাগিয়ে ১০-১৫ মিনিট এরপর হালকা কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে অন্তত তিন বার এই প্যাকটি ব্যবহার করুন। অ্যালোভেরা ও ডিমের সাদা অংশ এই দুটোই ভিটামিন ই সমৃদ্ধ। যা ত্বকের বয়স ধরে রাখতে সাহায্য করে। অ্যালোভেরা ত্বকে পুষ্টি যোগান দেয়। এতে আছে মেলিক অ্যাসিড যা ত্বকের রেখা বা ভাজ দূর করতে সাহায্য করে।  
 
 


 

জজোবা অয়েল  
 
কয়েক ফোটা জজোবা অয়েল হাতের আঙ্গুলে নিয়ে কপালে ও মুখের বাকি অংশে ঊর্ধ্বমুখী গতিতে মাসাজ করুন। এরপর ২০ মিনিট রেখে হালকা কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। প্রতিদিন ব্যবহার করুন বিশেষ করে রাতে ঘুমানোর আগে। জজোবা অয়েলে আছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ই। যা কপালে ভাজ বা রেখা সহজেই দূর করে দেয়। এবং বয়সের ছাপ কমাতে অত্যন্ত কার্যকরী। 
 
 
 
 

অ্যালমন্ড অয়েল  
 
কয়েক ফোটা অ্যালমন্ড অয়েল নিয়ে কপালে মাসাজ করুন। নিয়মিত রাতে ঘুমানোর আগে ব্যবহার করলে অনেক ভালো উপকার পাবেন। অ্যালমন্ড অয়েল ত্বককে করে স্মুদ ও ত্বকের তারুণ্য ভাব ধরে রাখে। এর মধ্যে থাকা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ত্বককে করে ময়শ্চারাইজ ও হাইড্রেটেড 
 
 
 
 

এক্সট্রা মাসাজ  
 
কয়েক ফোটা অলিভ অয়েল নিয়ে হালকা গরম করে নিন। চাইলে এর সাথে নারিকেল তেল ও ব্যবহার করতে পারেন। এরপর কপালে ও মুখে যেসব যায়গায় বলি রেখা আছে সেসব যায়গায় নিচ থেকে উপর দিকে মাসাজ করুন ১০ মিনিট। প্রতিদিন অন্তত একবার অথবা দুই বার ব্যবহার করুন ভালো ফলাফল পেতে। অলিভ অয়েলের সাথে নারিকেল তেল চমৎকার ময়শ্চারাইজার হিসেবে কাজ করে যা ত্বককে হাইড্রেটেড রাখে। এই মাসাজ ত্বকের ব্লাড সার্কুলেশন বাড়ায় ও ফেস এর টিস্যু মান উন্নত করে।  
 
 
তারকালয়/১০/১২/১৮/রুপা 

Previous ArticleNext Article