সাজগোজ

অ্যালোভেরা দিয়ে মাত্র তিন ধাপে আপনিও পেতে পারেন আকর্ষণীয় ত্বক

প্রচুর মাত্রায় অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট থাকার কারণে বিউটি প্রডাক্ট হিসেবে অ্যালোভেরার জনপ্রিয়তায় এগিয়ে।
অ্যালোভেরায় আছে ভিটামিন সি, ই এবং বিটা ক্যারেটিন।
এতে আছে অ্যান্টি-এজিং এবং অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল বৈশিষ্ট্য যা ত্বক সম্পর্কিত সমস্যাগুলি যেমন ব্রণ, পিম্পল, শুষ্কতা, ডাল, বলি রেখা ইত্যাদি থেকে পরিত্রাণ পেতে সাহায্য করে।ত্বককে করে মসৃণ, দাগ মুক্ত ও উজ্জ্বল। এটি ত্বকের ময়শ্চারাইজকে আটকে রাখে।
প্রতিনিয়ত ত্বকের যত্ন নেওয়া উচিত। জাদুকরী ভাবে তিনটি ধাপে পেয়ে যেতে পারেন উজ্জ্বল গ্লোয়িং ত্বক প্রতিদিন ।
জেনে নিন কীভাবে!

অ্যালোভেরা স্ক্রাবার   খুব সহজেই তৈরি করতে পারেন অ্যালোভেরা স্ক্রাবার । অ্যালোভেরা জেল বা রস ও সাথে চালের গুড়ো বা চিনি মিশিয়ে কিছুক্ষণ মুখে স্ক্রাব করুন এরপর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটি আপনার ত্বকের ভেতর থেকে ময়লা কাটাবে। ত্বকের মৃত কোষগুলি তুলে ফেলবে । রোদে পোড়া ভাব দূর করবে। ত্বকের সঠিক খেয়াল রাখতে অবশ্যই প্রতিনিয়ত স্ক্রাবিং করা উচিত। ধুলো ময়লা জমে স্কিনের অনেক ক্ষতি হয় । এতে করে ব্রণ, পিম্পলের মতো নানান সমস্যা দেখা দেয়।

অ্যালোভেরা টোনার   টোনার হিসেবে অ্যালোভেরার জুড়ি নেই। টোনার সাধারণত ক্লিনজিং এর কাজ করে । অ্যালোভেরার জেল এর সাথে গোলাপ জল মিশিয়ে হয়ে গেলো এক অসাধারণ টোনার যা আপনার ত্বকের ক্লিনজিং এর কাজ করবে এবং দিবে এক শীতল অনুভূতি।

অ্যালোভেরা ফেসপ্যাক   অ্যালোভেরা জেল বা রস, হলুদ, দুধ একসঙ্গে মিশিয়ে নিন । এই ফেসপ্যাকটি ১০-১৫ মিনিট রেখে ঠান্ডা পানি দিয়ে আলতো করে ধুয়ে নিন। এটি আপনি সপ্তাহে ২-৩ বার ব্যবহার করতে পারেন। এটি আপনার ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াবে এরই সাথে পেয়ে যাবেন কোমল ও মসৃণ ত্বক। নিমেষেই সারিয়ে তুলবে রোদে পোড়া ভাব।

*রূপচর্চায় অ্যালোভেরার জুড়ি নেই । তবে অবশ্যই মনে রাখতে হবে যাদের এলার্জীর সমস্যা আছে তাদের না ব্যবহার করাটাই শ্রেয়।

তারকালয়/১৭ আগস্ট,২০১৮/রূপা

Previous ArticleNext Article