বিনোদন, সেলিব্রিটি বার্তা

৫৭ বছরে পা রাখলেন রকস্টার জেমস

দেশের জনপ্রিয় ব্যান্ডদল নগর বাউলের কর্ণধার এবং ভোকালিস্ট মাহফুজ আনাম। যিনি জেমস নামেই উপমহাদেশে পরিচিত। সেই রকস্টার জেমসের জন্মদিন আজ (২ অক্টোবর) । ৫৬ বছর পূর্ণ করে ৫৭-তে পা রাখতে চলেছেন দেশের কালজয়ী রকস্টার ফারুক মাহফুজ আনাম জেমস। দিনটি ঘিরে জেমস নিজে যত না উদযাপন করেন, তার চেয়ে হাজার গুণ বেশি উদযাপন করে থাকেন ভক্তরা। নানা জেলায় নানা উল্লাস আনন্দে রকস্টারের জন্মদিন পালন করে ভক্তরা।

Tarokaloy_singer_James

কোনো ভক্ত জেমসকে চমকে দিতে দেড় হাজার কেজি ওজনের কেক বানান। কেউবা ঢাকা শহরে টাঙিয়ে দেন বড় বড় বিলবোর্ড। বাসে বাসে দেখা যায় জন্মদিনের শুভেচ্ছাসহ পোস্টার। এমন পাগলামি শুধু ঢাকাতেই সীমাবদ্ধ নয়, ছড়িয়ে পড়ছে দেশ-বিদেশের অগণিত ভক্তের মাঝে। ১৯৬৪ সালের ২ অক্টোবর নওগাঁয় জন্মগ্রহণ করেন জেমস। তার পারিবারিক নাম মাহফুজ আনাম। তার কৈশোর কেটেছে চট্টগ্রামের আজিজ বোর্ডিং-এ।

Tarokaloy_singer_James

বেড়ে ওঠা ও সংগীতে জড়িয়ে পড়ার পুরোটাই চট্টগ্রামে। বাবা ছিলেন সরকারি কর্মকর্তা। ছেলে গান করুক পছন্দ ছিল না তার। তাই প্রচণ্ড অভিমানে ঘরছাড়া হলেন। কাছের কয়েকজন বন্ধুকে নিয়ে গড়ে তুললেন ব্যান্ড ‘ফিলিংস’। ১৯৮৭ সালে প্রকাশ হয় তাদের প্রথম অ্যালবাম ‘স্টেশন রোড’। এর ‘আগের জনমে’, ‘আমায় যেতে দাও’ এবং ‘রূপসাগর’ গান তিনটি কিছুটা জনপ্রিয়তা পায়। এরপর ১৯৮৯ সালে প্রথম একক অ্যালবাম ‘অনন্যা’ প্রকাশ করেন জেমস।

Tarokaloy_singer_James

সেই অ্যালবামও সাফল্যের প্রত্যাশা পুরোপুরি ছুঁতে পারেনি। এর চার বছর পর ১৯৯৩ সালে ‘জেল থেকে বলছি’ অ্যালবাম বের করেন জেমস। ওই এক অ্যালবামেই আকাশচুম্বী সাফল্য পান জেমস। এরপর একে একে আসে ‘নগর বাউল’ (১৯৯৬), ‘লেইস ফিতা লেইস’ (১৯৯৮), ‘দুষ্টু ছেলের দল’ (২০০১), ‘পালাবে কোথায়’ (১৯৯৫), ‘দুঃখিনী দুঃখ করোনা’ (১৯৯৭), ‘ঠিক আছে বন্ধু’ (১৯৯৯), ‘আমি তোমাদেরই লোক’ (২০০৩), ‘জনতা এক্সপ্রেস’ (২০০৫), ‘তুফান’ (২০০৭) এবং ‘কাল যমুনা’ (২০০৮)।

Tarokaloy_singer_James

বাংলা গানের পাশাপাশি হিন্দি গানে কণ্ঠ দিয়েও জয় করেছেন লাখো ভক্ত-শ্রোতার হৃদয়। বলিউডে তার গাওয়া ‘ভিগি ভিগি’ (গ্যাংস্টার), ‘চল চলে’ (ও লামহে) এবং ‘আলবিদা’, ‘রিস্তে’ (লাইফ ইন অ্যা মেট্টো), ‘বেবাসি’ (ওয়ার্নিং) গানগুলো উল্লেখযোগ্য।

Previous ArticleNext Article