Uncategorized, সেলিব্রিটি বার্তা

শেষ হয়েও হলোনা শেষ – শাকিব-বুবলি-অপু বিশ্বাস

অবশেষে বিচ্ছেদ ঘটনা এবং ঘটে যাওয়া তাদের মধ্যকার সম্পর্কের বনাবনি নিয়ে কথা হাজির দুই তারকা,আজকে উৎঘাটন হবে তাদের অজানা কিছু তথ্য,প্রথমেই জানা যাক বুবলী থেকে সংগ্রহীত খবর।

কিছু প্রশ্ন ছুড়ে ফেলা হয় বুবলির কাছে তার মধ্যে একটি ছিল
‘আড়ালের এই সময়টাতে শাকিব খানের সঙ্গে কথা হয়েছে কিনা? বুবলী বললেন, শাকিব খবর নেওয়ার চেষ্টা করেছে। বেশ কয়েকবার চেষ্টা করেছে…’ গত ৬ জানুয়ারি বাংলাদেশ প্রতিদিনের শোবিজ বিভাগে ‘সময় হলেই খুলবে রহস্যের জট’ শিরোনামে বুবলীর দেওয়া সাক্ষাৎকারভিত্তিক প্রতিবেদনে প্রতিবেদক প্রশ্নের জবাবে এ অভিনেত্রী উপরের কথাগুলো বলেন।

tarokaloy_actress_bubly

এ যেন বিশ্বকবি ‘শেষের কবিতার’ মতো মানে শেষ পঙ্ক্তি ‘শেষ হইয়াও হইলো না শেষ’-এর মতোই অধরা। তার এই জবাবের রেশ ধরেই অভিনেতা শাকিব খানের কাছে জানতে চাওয়া হলো, ‘আপনি কি আসলেই বুবলীর খবর নেওয়ার চেষ্টা করেছেন, আর কী খবরইবা জানতে চেয়েছেন?’ এমন প্রশ্নের জবাবে শাকিবের ত্বরিত জবাব, ‘আরে ও তো আমার সহকর্মী, একজন সহকর্মীকে দীর্ঘদিন ধরে কেউ খুঁজে পাচ্ছে না, সহকর্মী হিসেবে তার খবর নেওয়াটা তো দায়িত্বের মধ্যেই পড়ে। তাই খবর নিতেই তাকে ফোন দিয়েছিলাম’। পরের প্রশ্ন- ‘তা বুবলী কী বলেছিলেন?’ শাকিব বললেন, ‘না কোনো কথা হয়নি, ও কল রিসিভ করেনি, হয়তো ব্যস্ত ছিল’।

tarokaloy_actress_bubly

শাকিব-অপুর পর এবার শাকিব-বুবলী অধ্যায়ের সূচনা রটে। আর এর রচয়িতা এবং আয়োজক তারাই। কারণ শাকিব-অপুর মধুর সংসার ভেঙে যাওয়ার উপাত্ত হিসেবে বুবলীর নামই ঘুরেফিরে ওঠে আসে। শাকিবের সঙ্গে বুবলীর প্রেমের গল্পটা শুরুতেই শুনিয়েছিলেন অপু বিশ্বাস। শাকিব-অপু গোপনে ২০০৮ সালে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হলেও অপুর ভাষ্য মতে, শাকিবের নির্দেশেই তা দীর্ঘদিন তাকে গোপন রাখতে হয়েছিল। ২০১৬ সালের মার্চে হঠাৎ করেই অপু চলে যান লোকচক্ষুর অন্তরালে। চলচ্চিত্র বা মিডিয়ার কেউ তাকে খুঁজে পাচ্ছিলেন না। কেটে গেল ১৪ মাস। অপুর কোনো খবর নেই। অপু আড়াল হওয়ার অনেক আগেই কিন্তু শাকিব-অপুর প্রেম আর পরিণয়ের গুঞ্জন আকাশে-বাতাসে উড়ে বেড়িয়েছে। কিন্তু দুজনই বরাবর তা অস্বীকার করে আসছিলেন।
একটু চিন্তা করলে দেখা যাবে , বুবলি কিন্তু সেই একই কাজ করছে ,তাহলে কি বুবলি!!

Tarokaloy_actrees_bubli__actor_shakib_khan_and_actress_apu_biswas

এমনকি অপু আড়ালে চলে যাওয়ার পর মিডিয়ার তরফ থেকে শাকিবের কাছে অপুর খবর জানতে চাওয়াতে প্রতিবারই শাকিব খান বলেছিলেন, ‘অপুর খবর আমি কীভাবে জানব’। নিজেদের প্রেম-বিয়ের খবর অস্বীকার করে দুজনই বলেছিলেন, ‘সবই গুজব। আমরা দুজন সহকর্মী ও ভালো বন্ধু ছাড়া আর কিছুই নয়’। ২০১৬ সালে অপু আড়াল হওয়ার পর একমাত্র বাংলাদেশ প্রতিদিনের সঙ্গে যোগাযোগ রেখেছিলেন এ অভিনেত্রী। তখন বলেছিলেন, অনেক কষ্ট আর ক্ষোভের কথা। অপু তার কষ্টের কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে বুবলীর দিকেই আঙুল তুলেছিলেন। বলেছিলেন, ‘শাকিব আমাকে বিয়ে করার পর বিয়ের কথা গোপন রাখাসহ সে যা বলেছে আমি তা মেনে নিয়েছি। ২০১৬ সালের মার্চে যখন বুলবুল বিশ্বাসের ‘রাজনীতি’ ছবির শুটিং করি তখন আমি প্রেগন্যান্ট। এ অবস্থাতেও শুটিং করে গেছি। শেষ পর্যন্ত যখন বেবি বাম্প আর গোপন করা যাচ্ছিল না, তখনই আড়ালে চলে যাই।

Tarokaloy_actress_apu_biswas

অপু বলেছিলেন, ‘আমার কষ্টটা ছিল বুবলীকে ঘিরে। আমি লক্ষ্য করলাম শাকিবের সঙ্গে বুবলীর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠেছে। নানাজন আমাকে বিষয়টি সম্পর্কে অবগত করেছিল। এ বিষয়ে শাকিবের কাছে জানতে চাইলে সে আমার সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করত। সে আমাকে বাচ্চা নষ্ট করার কথা বলত। এতে আমি রাজি না হলে সে আমাকে এড়িয়ে চলতে থাকে। যখন কলকাতার একটি হাসপাতালে ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বরে বাচ্চা ডেলিভারির জন্য ভর্তি হই তখন ২৭ সেপ্টেম্বর বাচ্চা হওয়ার সময় বা তার আগে ও পরে একবারের জন্যও হাসপাতালে আমাকে বা বাচ্চাকে দেখতে আসেনি শাকিব। সে তখন বুবলীকে নিয়েই ব্যস্ত ছিল। বাচ্চাকে নিয়ে যখন দেশে ফিরি তখন সে আমার অনুরোধে আমার বাসায় বাচ্চা দেখতে আসত। আমি তাকে বিষয়টি সবাইকে জানানোর কথা বললে সে বলত, ‘এখন বিষয়টি সবাই জেনে গেলে আমার ফিল্ম ক্যারিয়ারের ক্ষতি হবে। সময়মতো জানানো যাবে।’

Tarokaloy_shakib_khan_and_apu_biswas

আমি তার কথা মেনে নিয়ে তাকে জানাই, ‘এক শর্তে আমাদের বিয়ে ও বাচ্চার বিষয়টি গোপন রাখতে পারি। আর তা হলো তুমি আর বুবলীর সঙ্গে ছবি করতে পারবে না।’ অপু বলেছিলেন, শাকিব আমার শর্ত মেনে নিয়েছিল, সে আমার কথা রাখায় আমিও খুশি হয়েছিলাম। কিন্তু না, এই খুশি বেশি দিন টেকেনি। ২০১৭ সালের ১০ এপ্রিল সকাল সকালই আমার মাথায় যেন আকাশ ভেঙে পড়ল। একটি পত্রিকায় দেখলাম শাকিব-বুবলী জুটি বেঁধে ‘রংবাজ’ শিরোনামের একটি ছবিতে অভিনয় করতে যাচ্ছে। শাকিব আমাকে দেওয়া প্রতিশ্রুতি ভাঙায় আমার আর মাথা কাজ করেনি । আমিও সিদ্ধান্ত নিলাম তার কথা রাখা আমার পক্ষে আর সম্ভব নয়। আমি টিভি লাইভে এসে আমাদের প্রেম-বিয়ে আর বাচ্চার কথা দেশের মানুষকে জানালাম।

tarokaloy_actress_bubly

শাকিব-বুবলীর দর্শকরা এখন নাকি ২০১৬ সালে অপুর আড়াল হওয়ার সঙ্গে প্রায় ১১ মাস ধরে বুবলীর উধাও হওয়ার মিল খুঁজে পাচ্ছেন। দর্শকদের প্রশ্ন- ‘তাহলে কী অপুর পথেই হাঁটছেন বুবলী’। মানে শাকিব-বুবলীর প্রেম, পরিণয় আর সন্তান জন্মের যে গুঞ্জন বর্তমান সময়ে কান ভারি করে রেখেছে তা-ই একদিন সত্যি হবে। অপুর মতো বুবলীকেও কি দেখা যাবে শাকিবের বাচ্চা কোলে নিয়ে জনতার দরবারে হাজির হতে।

Previous ArticleNext Article