বিনোদন, সেলিব্রিটি বার্তা

সুস্মিতা ও রোহমানের সম্পর্ক ভাঙার কারণ যেটি!

মডেল রোহমান শলের সঙ্গে তিন বছররের সম্পর্কে ইতি টেনেছেন সাবেক মিস ইউনিভার্স ও অভিনেত্রী সুস্মিতা সেন। বিষয়টি গোপন না করে ভক্তদের জানিয়েছেন সুস্মিতা নিজেই। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ইনস্টাগ্রামে তিনি লিখেছেন, ‘আমরা শুরু করেছিলাম বন্ধু হিসেবে। আমরা বন্ধুই থাকব। সম্পর্ক অনেক দিন আগেই শেষ হয়ে গেছে। কিন্তু ভালবাসা রয়ে গেছে।’ কিন্তু কেন প্রেমের সম্পর্ক থেকে ফিরে যেতে হল বন্ধুত্বে? সেই প্রশ্নের উত্তর আপাতত নিজের কাছেই রেখেছেন এই অভিনেত্রী।

Tarokaloy_sushmita_sen_and_rohman_shawl

রোমান কাশ্মীরের ছেলে। বড় হয়েছেন নৈনিতালে। দেরাদুনে ইঞ্জিনিয়ারিং এর পড়াশুনো শেষ করে মডেলিং শুরু করেন। পাঁচ-ছয় বছর মডেলিং করার পর মুম্বাইতে পাড়ি দেন। রোহমান-সুস্মিতার প্রেম কাহিনির সূত্রপাত ২০১৮ সালে। ইনস্টাগ্রাম মেসেজের সৌজন্যে সুস্মিতার সঙ্গে তার পরিচয়। সেই থেকে শুরু আলাপচারিতা। তারপর বন্ধুত্ব ও প্রেম। বিভিন্ন পারিবারিক ও সামাজিক আয়োজনে দু’জনকে একসঙ্গে দেখা গেছে। তাদের সঙ্গে সুস্মিতার দুই সন্তান আলিশ ও রেনেকেও দেখা গেছে।

Tarokaloy_sushmita_sen_and_rohman_shawl

সুস্মিতা এবং তার দুই মেয়ের সঙ্গে থাকতেন রোহমান। কিন্তু সম্পর্কে ভাঙনের পর অভিনেত্রীর বাড়ি থেকে চলে যান তিনি। সম্প্রতি ইনস্টাগ্রামে সক্রিয় হয়ে উঠেছেন সুস্মিতা। তাঁকে পেয়ে ভক্তরাও নানা প্রশ্ন করতে থাকেন। জানতে চান তাঁর জীবন ও ভাবনার জগৎ সম্পর্কে। এতে বিরক্ত না হয়ে বরং খুশিই হয়েছেন সুস্মিতা।

Tarokaloy_sushmita_sen

তাঁর কাছে শ্রদ্ধা নাকি ভালোবাসা কোনটি গুরুত্বপূর্ণ—এক ভক্তের এমন প্রশ্নের জবাবে সুস্মিতা এগিয়ে রাখলেন শ্রদ্ধাকে। তিনি বললেন ‘আমার কাছে শ্রদ্ধাই দামি। আগে শ্রদ্ধা, তারপ কারণ, ভালোবাসা এমন এক অনুভূতি, যা জীবনে আসে দ্রুত, চলেও যায় একইভাবে। যেখানে শ্রদ্ধা থাকে না, সেখানে ভালোবাসাও থাকে না।’ যা–ই হোক না কেন, কারও প্রতি শ্রদ্ধা কমে যাওয়া উচিত নয়।

Tarokaloy_sushmita_sen

সব সম্পর্কেই সম্মান থাকা প্রয়োজন। যেখানে সম্মান নেই, সেখানে ভালোবাসা থাকতে পারে না। শুধু ভালোবাসায় মনোযোগ দিলে বাকি সব বিবর্ণ, অর্থহীন হয়ে যাবে। সুস্মিতার এমন জবাবে অনেকের মনে প্রশ্ন জাগছে যে সুস্মিতা-রোহমানের প্রেম কি তাহলে শ্রদ্ধা নিয়ে ভেঙেছে? উত্তর না মিললেও ধারনা করছেন অনুরাগীরা। তবে তাদের সম্পর্ক ভাঙার আসল কারণ এখন গোপনীয়।

Previous ArticleNext Article