সাজগোজ

রূপচর্চায় যেসব প্রাকৃতিক উপাদান ক্ষতিকর

প্রাচীনকাল থেকেই রূপচর্চায় প্রাকৃতিক উপাদানের গুরুত্ব রয়েছে। বর্তমান যুগেও এর ব্যবহার একটুও কমেনি, বরং বেড়েছে। ব্যবহৃত এসব প্রাকৃতিক উপাদান যতই ভালো ফলাফল দিক না কেন, তারপরও সাবধান থাকা জরুরি। কারণ পরিবেশবান্ধব এসব উপাদান ত্বকের জন্য উপকারী হলেও অনেক বেশি ব্যবহার করলে হিতে বিপরীতও হতে পারে। চলুন জেনে নেয়া যাক কয়েকটি প্রাকৃতিক উপাদানের ক্ষতিকর দিক যা আমরা প্রায়ই রূপচর্চার ক্ষেত্রে ব্যবহার করি-

Tarokaloy_skin_care

লেবু রস: লেবুতে অ্যাসিড থাকে, ফলে সরাসরি ব্যবহার করলে ত্বকের অত্যন্ত ক্ষতি হতে পারে। তবে কয়েকটি উপাদান মিলে প্যাক তৈরি করে তাতে সামান্য লেবু যোগ করতে পারেন। মনে রাখা ভালো, লেবুযুক্ত প্যাক পুরো ত্বকে ব্যবহারের আগে সামান্য একটু লাগিয়ে দেখবেন। অসুবিধা না হলে ব্যবহার করবেন।

Tarokaloy_skin_care_with_lemon

বেকিং সোডা: মানসিক চাপ থেকে শুরু করে বিভিন্ন ব্যথা থেকে মুক্তি পেতে গোসলে অনেকেই বেকিং সোডা ব্যবহার করে থাকেন। কিন্তু এর ক্ষারীয় মাত্রা আপনার ত্বককে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে।

Tarokaloy_skin_care_with_baking_soda

দারচিনি: আজকাল ব্রণের সমস্যা সমাধানে দারচিনি খুবই জনপ্রিয় হয়ে ওঠেছে। অনেকেই মুখের মাস্ক হিসেবে এটি ব্যবহার করছেন। দারচিনির একটি ক্ষতিকর দিক হচ্ছে এটি চর্মরোগ যা ত্বকে লালচে ভাব, রেশ ও জ্বালাপোড়ার জন্য দায়ী।

Tarokaloy_skin_care_with_cinnamen

অ্যাপল সিডার ভিনেগার: অনেকেই ব্রণ, খুশকি অথবা প্রাকৃতিক ডিওডোরেন্ট হিসেবে অ্যাপল সিডার ভিনেগার ব্যবহার করে থাকেন। কিন্তু এটি অনেক বেশি অ্যাসিডিক হওয়ায়, আপনার ত্বকে মারাত্মক রাসায়নিক প্রতিক্রিয়া হতে পারে। এ ধরনের প্রতিক্রিয়া এড়ানোর জন্য অ্যাপল সিডার ভিনেগার পানি মিশিয়ে ব্যবহার করতে পারেন।

Tarokaloy_skin_care_with_apple_sider_vinegar

স্বচ্ছ চিনি ও দানাদার কফি: চিনি এবং কফির কনা দিয়ে ত্বক স্ক্রাব করলে ত্বকের মরাচামড়া যেমন দূর হয় তেমনি ব্লাক ও হোয়াইট হেইডস চলে যায়। কিন্তু অনেকক্ষন ধরে স্ক্রাবিং করলে ত্বকে একধরনের সুক্ষ্ন ক্ষতের সৃষ্টি করে। যা বার্ধক্য প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করে এবং ত্বকের ক্ষতি করে সংবেদনশীন করে তোলে। বিশেষ করে যাদের ত্বক অতিরিক্ত পাতলা। তাদের ত্বকে একধরনের প্রদাহ তৈরি হয়

Tarokaloy_skin_care_with_sugar

ডিমের সাদা অংশ: মুখের ত্বকের কুচকানো ভাব দূর করে টান টান ও মসৃণ করে তুলতে অনেকেই ডিমের সাদা অংশ ব্যবহার করে থাকি। ডিমের মধ্য দিয়ে সেলমোনেলা নামক এক ধরনের ব্যাকটেরিয়া পেটে গিয়ে খাদ্যে বিষক্রিয়া ঘটাতে পারে।

Tarokaloy_skin_care_with_egg

তাই কাঁচা অবস্থায় ডিম মুখের কাছে না নেয়াই ভালো।

Previous ArticleNext Article