বিনোদন, সেলিব্রিটি বার্তা

মুক্তি পেলেন পরীমণি

বর্তমান সময়ের আলোচিত–সমালোচিত চিত্রনায়িকা পরীমনি অবশেষে মুক্তি পেলেন। গত বুধবার (১ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে গাজীপুরের কাশিমপুর মহিলা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে তাঁকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে। গত ৪ আগস্ট বিকেলে রাজধানীর বনানীতে পরীমনির বিলাসবহুল ফ্ল্যাটে অভিযান চালায় র‍্যাব। অভিযান পরই বাড়িতে মিনিবারের সন্ধান পাওয়া যায়। বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ ওয়াইন, আইস, এলএসডি ও মাদক সেবনের সরঞ্জামাদি উদ্ধার করা হয়। তারপর পরীমনিকে আটক করে নিয়ে যাওয়া হয়।

Tarokaloy_pori_moni

মাদকের মামলায় তাঁর ৫ আগস্ট চার দিনের, ১০ আগস্ট দুই দিনের ও ১৯ আগস্ট এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। রিমান্ড শেষে ২১ আগস্ট তাঁকে কারাগারে পাঠানো হয়। ২২ আগস্ট পরীমনির পক্ষে তাঁর আইনজীবীরা ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে জামিন আবেদন করেন। ৩১ আগস্ট মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকার মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েস পরীমনির জামিনের আদেশ দেন। কিন্তু এটি স্থায়ী জামিন না। ৫০ হাজার টাকার আর্থিক মুচলেকায় জামিন আদেশ দেন ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কেএম ইমরুল কায়েশ।

Tarokaloy_pori_moni

বিচারক ১৩ সেপ্টেম্বর জামিন আবেদনের শুনানির দিন ঠিক করেন। ১ সেপ্টেম্বর পরীমনির মুক্তির অপেক্ষায় গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারের সামনে পরীমনির আইনজীবী ও স্বজনেরা সকাল থেকে অপেক্ষা করেন। পরীমনি ওই কারাগারে ২৬ দিন বন্দী ছিলেন। কাশিমপুর মহিলা কারাগারের জেল সুপার হালিমা খাতুন জানান, মঙ্গলবার বিকেল ৬টার মধ্যে জামিনের কাগজপত্র কারাগারে এসে পৌঁছায়নি। ফলে কারাগার লকআপ হয়ে যায়।

Tarokaloy_pori_moni

তবে তার জামিন আদেশ কেরানীগঞ্জে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পৌঁছে। সেখান থেকে তার জামিনের কাগজপত্র রাত ১০টার পরে এ কারাগারে পৌঁছালে তা যাচাই-বাছাই করে বুধবার ৯টা ২১ মিনিটে তাকে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়। পরীমনির আইনজীবী নীলাঞ্জনা রিফাত বলেন, পরীমনিকে কারাগার থেকে নিতে তাঁর খালু জসীমউদ্দিনসহ সাত-আটজন স্বজন এসেছেন।

Tarokaloy_pori_moni

পরীমনিকে দেখতে সকাল থেকে ভিড় জমান উৎসুক জনতা। কারাগার থেকে বের হয়ে তাদের উদ্দেশে হাত নাড়ান পরীমণি। সাদা টিশার্ট এবং মাথায় সাদা পাগড়ির মতো করে জড়ানো কাপড়ে পরীমনি কারাগার থেকে বেরিয়ে একটি ছাদ খোলা গাড়িতে করে চলে যান। এই সময় ভক্তদের উদ্দেশ্যে তিনি হাত নাড়েন। তবে পরীমনির যাতে স্থায়ী জামিন আদেশ পাওয়া যায় সেই আইনী লড়াই চালিয়ে যাবেন বলে জানা গেছে।

Tarokaloy_pori_moni

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের যে ধারায় পরীমনির বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে, তা রাষ্ট্রপক্ষ প্রমাণ করতে পারলে তাঁর সর্বোচ্চ পাঁচ বছর কারাদণ্ড হতে পারে বলে জানা যায়।

Previous ArticleNext Article