Uncategorized, রেসিপি

মজাদার অরেঞ্জ স্মুটি

কমলা লেবু ও মাল্টা জানুয়ারি মাস থেকে এই চলতি মার্চ মাস পর্যন্ত প্রচুর পরিমাণে ফলন হয়,যার ফলে অতি সহজে কেনা হয় প্রতি ঘরে ঘরে। দামেও সস্তা এই সময়ে। আমরা সবাই জানি দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি জন্য ভিটামিন সি জাতীয় খাবার কোনো বিকল্প নেই। কমলা বা মালটাতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি আছে। এছাড়া ভিটামিন এ, ফাইবার, ক্যালসিয়াম, ভিটামিন বি৬ সহ আরও অনেক পুষ্টিগুণ আছে এতে! আর করোনা কালীন এসময়ে এই দুইটি ফল যেনো সৃষ্টিকরতা থেকে পেরিত নিরাময়ক একটি উপাদান যা সহজেই রোগ প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে।

Tarokaloy_orange_smoothe

কিন্তু এই ফল টি একই ভাবে খেতে খেতে কেমন যেনো এক ঘেয়েমি কাজ করে ,আর ছোট বাচ্চাদের তো এই ফল ছোঁয়ানো যেনো ,যুদ্ধ জয় করা। কিন্তু আপনি চাইলে সহজেই এই ফলকে মজাদার এবং খাওয়ার প্রতি আকর্ষণীয় করতে পারেন,শুধু লাগবে বাসার অল্প কিছু উপাদান এবং আপনার মূল্যবান সময় থেকে একটু সময় দিয়ে খুব সহজেই টেস্টি আর হেলদি অরেঞ্জ স্মুদি তৈরি করে নেওয়া যায়। পুষ্টিকর সব উপকরণ দিয়ে বানানো এই স্মুদিতে বাড়তি কোনো চিনি যোগ করার প্রয়োজন নেই ,সে জন্যই সব বয়সের সবার জন্যই উপযোগী একটি পানীয় এটি। তাহলে দেড়ি না করে অরেঞ্জ স্মুদি তৈরির পুরো প্রণালীটি দেখে নিন!

অরেঞ্জ স্মুদি তৈরির নিয়ম এবং উপকরণ


উপকরণ
•মালটা বা কমলা- ২টি
•টকদই– ৪ টেবিল চামচ
•কলা- ১টি
•মধু- ২ চা চামচ
•গুঁড়ো দুধ- ২ চা চামচ

Tarokaloy_orange_smoothe

প্রস্তুত প্রণালী
১) কমলা বা মালটা, আপনার পছন্দ সাপেক্ষে কাছে যেটাই থাকে, সেটা দিয়ে এই স্মুদি বানিয়ে নিতে পারবেন! শুধু এটার রস বা পিউরি টা আলাদা করে নিতে হবে। কিংবা ছোট ছোট করে কেটেও নিতে পারেন।

২) এবার ব্লেন্ডারের জগে ফালি করে কাটা কলা,পরিমাণ মত টকদই ও পরিমাণ মত গুঁড়ো দুধ দিয়ে এক মিনিটের জন্য ব্লেন্ড করে নিন। বেশ স্মুথ ও ক্রিমি হবে মিশ্রণটি!

৩) এবার এই মিশ্রণটিতে অরেঞ্জ ও মধু দিয়ে আবার তিরিশ সেকেন্ডের জন্য ব্লেন্ড করুন। চাইলে হাফ কাপ ঠাণ্ডা পানিও যোগ করতে পারেন।

৪) তারপর ছাঁকনি দিয়ে ছেঁকে নিয়ে গ্লাসে ঢেলে পরিবেশন করুন।

এইতো, মজাদার ড্রিঙ্কসটি অল্প সময়ে ও ঝামেলাবিহীনভাবে তৈরি হয়ে গেলো! অরেঞ্জ স্মুদিতে কমলার পাশাপাশি বেশ কিছু উপাদান ব্যবহার করা হয়েছে। টকদই হজমে সহায়তা করে এবং ওজন নিয়ন্ত্রণ করে। মধু সর্দি-কাশি কমাতে ও হার্ট ভালো রাখতে কার্যকরী ভুমিকা রাখে। আর কলারও অনেক স্বাস্থ্যগুণ আছে। তাই এই পানীয়টি প্রতিদিনের খাদ্যতালিকাতে রাখতে একদমই ভুলবেন না ! মনে রাখবেন পুষ্টিকর খাবার শুধু শরীর কে নয়, মনকে ভালো রাখতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

Previous ArticleNext Article