Uncategorized, রেসিপি

চুলায় গার্লিক নান তৈরির রেসিপিটি!

নানান রকম নানের মধ্যে অনেকেই সবচেয়ে বেশি পছন্দ গার্লিক নান! তাই না? কারণ গার্লিক নান ,খেতে যেমন মজাদার ঠিক তেমনি অতিথি আপ্যায়নের ক্ষেত্রে বেশ উপযোগী এবং আকর্ষণীয়। কাবাব, গ্রিল কিংবা বাটার চিকেনের সাথে এর কোনো বিকল্প নেই বললেই চলে।বাড়িতে মেহমান আসলেই একটা চিন্তা থাকে একটি নতুন কিছু তাদের সামনে পরিবেশন করা,কিভাবে মেহমানদের নিজের গুন তুলে ধরার , বাইরে থেকে অর্ডার করলে হাইজিন ও রান্নার পরিবেশ নিয়ে মনে দ্বিধা থেকেই যায়।

Tarokaloy_garlic_naan_recipie

তাহলে আজকে এসকল চিন্তার অবসান ঘটবে ,কারণ খুব সহজে গার্লিক নান ঘরেই তৈরি করে নিতে পারেন। কিন্তু কিভাবে রেস্টুরেন্টের মতো পারফেক্ট ও তুলতুলে নান রুটি বানানো যায়, সেটা নিয়েই ভাবছেন তো? অনেকে আবার মনে করেন, ওভেন ছাড়া নান বানানো? কিভাবে সম্ভব!!

কিন্তুচুলায় তৈরি গার্লিক নানের স্বাদ কিন্তু কোনো অংশে কম হয় না। চলুন তাহলে জেনে যাক, চুলায় গার্লিক নান তৈরির রেসিপিটি! গার্লিক নান তৈরির প্রণালী

যেসব উপকরণ ব্যবহার করতে হবে:

ময়দা- ২ কাপ

ইস্ট- ১ চা চামচ

গরম দুধ- ১ কাপ

লবণ– পরিমাণমতো

বেকিং পাউডার- ১ চিমটি

গলানো বাটার- ৪ চা চামচ

রসুন মিহি কুঁচি করা- ২ চা চামচ

Tarokaloy_garlic_naan_recipie

প্রস্তুত প্রণালী

•প্রথমে গরম দুধের সাথে ইস্ট মিশিয়ে ভালো করে নেড়ে এরপর এবার দশ মিনিটের জন্য ঢেকে রাখুন ।অতঃপর বড় একটি বোলে ময়দা, বেকিং পাউডার ও লবণ অর্থাৎ শুকনো উপকরণগুলো ভালোভাবে মিশিয়ে নিন।

•এরপর এতে রসুন কুঁচি ও বাটার দিয়ে দিন। ইস্টযুক্ত দুধ আস্তে আস্তে ঢেলে খামিটি তৈরি করে নিন। খামি তৈরিতে চাইলে বাটারের পরিবর্তে তেলও ব্যবহার করতে পারেন।

• প্রয়োজন মত গরম পানি যোগ করুন। খুব নরম করে ডো বানাতে হবে, তাহলে নান নরম ও তুলতুলে হবে। এবার ডো-এর উপর অল্প তেল বা বাটার মাখিয়ে ভেজা কাপড় দিয়ে ঢেকে রাখুন। গরম কোনো জায়গায় রাখতে পারলে ভালো। কিছুক্ষণ পর দেখতে পারবেন, ডো ফুলে দ্বিগুণ হয়ে গেছে।

• এরপর একে ভালোভাবে হাত দিয়ে মেখে নিন। তারপর ভাগ ভাগ করে নিয়ে রুটির মতো বেলে নিন। আপনার পছন্দ মতো শেইপে নান তৈরি করুন যে যেমন রকম শেইপ চাচ্ছেন ,ঠিক তেমন ভাবে করতে পারেন।

• অন্যদিকে নান সেকে নেয়ার জন্য একটি তাওয়া চুলায় দিয়ে গরম করে নিন। তারপর বাটার দিয়ে মাঝারি আঁচে আসতে আসতে নানগুলো সেঁকে নিন যেনো পুরে না যায় খেঁয়াল রাখতে হবে। যখন দেখবেন নানের উপরের অংশ ফুলে উঠেছে, তখন এটাকে সাবধানে উল্টে দিন। এভাবে সময় নিয়ে একটা একটা করে নান সেঁকে তুলে নিন। এইতো, তৈরি হয়ে গেল রেস্টুরেন্ট স্বাদের মজাদার গার্লিক নান!

এবার গরম গরম নান যে কোনো কাবাব, ডাল, সবজি অথবা চিকেনের সাথে পরিবেশন করুন। রুটি ও পরোটাতো ঘরে ঘরে প্রতিদিনই তৈরি হয়। একঘেয়েমি মেন্যু থেকে বেরিয়ে এসে স্বাদে একটু পরিবর্তন আনতে আজই গার্লিক নান ট্রাই করে পরিবার এবং মেহমান এবং সকলের সাথে এই মজাদার আইটেম টি উপভোগ করুন।

Tarokaloy 17/10/2020 Riya

Previous ArticleNext Article